১২ এপ্রিল ১৯৭৩ : জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

১২ এপ্রিল ১৯৭৩ সালের জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণঃ বৃহস্প্রতিবার, বিকাল ৩-০৪ মিনিটে স্পীকার জনাব মুহম্মদুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান (প্রধানমন্ত্রী, পরিষদ নেতা) :  জনাব স্পীকার সাহেব, একটা point করা হয়েছে এখানে Opposittion party সম্বন্ধো | এটা সত্য যে, সংসদীয় গণতন্ত্রে Opposittion party তে Opposittion leader থাকে । কিন্তু দুখের বিষয়, আতাউর রহমান খান সাহেব একলা এক দলের একজন, আর কয়েক জন নির্দলীয় সদস্য আছেন। এই জন্য পীঁচ-সাত সদস্য নিয়ে তারা এক জায়গায় বসতে চেয়েছিলেন। আমরা সেটা দিয়েছি। কিন্তু এই পাঁচ-সাতজনকে নিয়ে কোন Opposittion leader হতে হলে কি প্রয়োজন, parliamentary convertion  এর rules এ তা আছে জনাব স্পীকার সাহেব ।

 

১২ এপ্রিল ১৯৭৩ সালের জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণming ]
১২ এপ্রিল ১৯৭৩ সালের জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

 

১২ এপ্রিল ১৯৭৩ সালের জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

কারণ Parliamentary convertion বলে দুনিয়ায় যে একটা জিনিস আছে, সেটা আমাদের বোঝা এবং জানা দরকার। যেখানে Opposittion party হতে হলে যে সংখ্যার প্রয়োজন, সেই সংখ্যা এখানে নাই। সেই সংখ্যার বাইরে এমন Opposittion group করতে হলে যে সংখ্যা দরকার, সেটাও এখানে নাই।Opposittion part করতে হলে ২৫ জনের কমে হয় না এবং সেই খ্যা যদি তারা রাখতে পারতেন, তা হলে আমরা তাকে Opposittion leader  হিসেবে গ্রহণ করতে পারতাম । যদি ১০ জন সদস্য বিরোধী হয়, তাহলে তাকে Opposittion grouping বলা হয় not the party এবং তার কমে Opposittion group হয় না।

Bangabandhu Gurukul

কিন্ত এখানে আতাউর রহমান সাহেব আলাদা এক দলের একজন সদস্য আর অন্য দলের একজন, আর নির্দলীয় কয়েকজন, এই পাঁচজনকে নিয়ে কোন Opposittion group হয় না এবং আতাউর রহমান সাহেব তার নেতা হতে পারে না। পাঁচ-সাতজন সদস্য নিয়ে যে Opposittion গঠিত হবে, এটা আমরা গ্রহণ করতে পারি না। আপনারা আগামী নির্বাচনে এসে সংসদে কি 02০9০ সৃষ্টি করেন, না Opposittion সৃষ্টি করেন, এতে আমাদের আপত্তি নেই । এই সম্বন্ধে আমার কোন আপত্তি থাকবে না জনাব স্পীকার সাহেব।

 

Bangabandhu Gurukul

 

আরও পরুন :

“১২ এপ্রিল ১৯৭৩ : জাতীয় সংসদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ”-এ 1-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন